প্রথমবারের মতো কাঁচেরকোলে করোনা রোগী শনাক্ত

প্রথমবারের মতো শৈলকুপার কাঁচেরকোল গ্রামে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। আজ সোমবার কাঁচেরকোল গ্রামে তাসলিমা খাতুন (২০) নামে একজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি করোনায় মারা যাওয়া নিহত আনিচুর রহমানের মেয়ে। 

বিষয়টি ঝিনাইদহ জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, তাসলিমা খাতুন তার বাবার সংস্পর্শে আসায় তার শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর তিনি করোনা টেস্ট করালে আজ তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মো. রাশেদ আল মামুন বলেন, কাঁচেরকোল গ্রামের অনার্স পড়ুয়া তাসলিমা খাতুন (২০) নামের এক শিক্ষার্থী রয়েছে। শনাক্ত রোগীরা সবাই নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সবাই সুস্থ আছে বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) করোনা উপসর্গ নিয়ে আনিসুর রহমান (৫০) মৃত্যুবরণ করেন। তিনি তিন দিন আগে ঢাকা থেকে জ্বর, শ্বাসকষ্ট, সর্দি কাশি নিয়ে কাঁচেরকোলে তার নিজ বাড়িতে প্রবেশ করেন।

জানা যায়, কুষ্টিয়া ল্যাবে আজ শৈলকুপায় নতুন করে আরো ৬ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে, কাঁচেরকোল ১, গাড়াগঞ্জের চন্ডীপুর ৩, দুধসর ১ উমেদপুর ১ জন। মোট শনাক্ত ৬৭, সুস্থ ১৬, মৃত্যু ৩।

উল্লেখ্য, কাঁচেরকোল ইউনিয়নে এ পর্যন্ত দুইজন করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। তারা দুজনেই ঢাকায় থাকতেন। তাদের মধ্যে জমিদার বাড়ির খান বাহাদুর কাজী সরোয়ার হোসেনের নাতীছেলে, কাজী মো. নিজাম উদ্দীন শাহীন (৫৪) করোনা আক্রান্ত হয়ে গত মঙ্গলবার (৯ জুন) রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। আরেকজন গত ২ জুলাই (বৃহস্পতিবার) কাঁচেরকোল গ্রামের আনিসুর রহমান (৫০) ঢাকা থেকে আক্রান্ত হয়ে গ্রামে এসে মৃত্যুবরণ করেন।

মন্তব্য করুন