• Home »
  • গ্রামের খবর »
  • মির্জাপুরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ফেরতরা মানছেন না সামাজিক দূরত্ব, করোনা ঝুঁকিতে গ্রামবাসী

মির্জাপুরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ফেরতরা মানছেন না সামাজিক দূরত্ব, করোনা ঝুঁকিতে গ্রামবাসী

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। কিন্তু তাতেও সচেতন হচ্ছে না সাধারণ মানুষ। কোনো কারণ ছাড়াই কাঁচেরকোল ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা সাধারণ মানুষ এখন রাস্তায় বের হচ্ছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কোনো ধরনের জনসমাগম না করার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। এসব মানুষকে ঘরে রাখতে এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে স্থানীয় প্রশাসন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বিশ্বস্ত একটি সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিনে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রামে বেশ কয়েকজন যুবক ও মধ্য বয়সী মানুষ মির্জাপুর গ্রামে এসেছেন। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী তারা নিজ নিজ বাড়িতে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা থাকলেও তা তারা কেউই মানছেন না। অনেকে বাজার করতে যাচ্ছেন, আবার বিকেল ও সন্ধ্যায় অনেক যুবককে দেখা যায় একসঙ্গে ১৫/২০ জন আড্ডা দিচ্ছেন। অনেকে আবার দল বেধে রাস্তায় হাটাহাটি করছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যা সত্যিই উদ্বেগজনক।

এদিকে, বৃত্তিপাড়া বাজার ও মির্জাপুর বাজারে সারাদিনে মানুষের আনাগোনা না থাকলেও বিকেলের পর থেকে এই দুই বাজারে মানুষের ভিড়ে পা ফেলার জায়গাটুকুও থাকে না।      

এছাড়া বিভিন্ন পাড়া ও মহল্লায় মুদি দোকানে একই ব্যক্তিকে দিনে একাধিকবার ঘুরাঘুরি করতে দেখা যায়। বাড়ি থেকে কেউ একবার বের হলে পরিচিত জনদের সঙ্গে দীর্ঘ আলাপচারিতায় সেখানে আরও মানুষ জোরো হয়। এতে করে মির্জাপুর গ্রামে সামাজিক দূরত্ব সত্যিকার অর্থেই নেই বললেই চলে।

গ্রামের সচেতন নাগরিকেরা মনে করেন, অহেতুক ঘোরাঘুরি ঠেকাতে ও সামাজিক দূরত্ব সত্যিকার অর্থেই নিশ্চিত করতে গ্রামকে লকডাউন করে দেয়া উচিত। এতে করে গ্রামের সাধারণ মানুষ বেঁচে যাবে।

জানা যায়, গত কয়েকদিনে প্রশাসনের তৎপরতার কারণে হাট-বাজারগুলোতে মানুষের সমাগম অনেকাংশে কম হলেও বর্তমানে সেটি বৃদ্ধি পেয়েছে। আইন অমান্য করার প্রবণতা সবার মধ্যে লক্ষ করা যাচ্ছে। খাঁচেরকোলে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও সামনের দিনগুলি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বলে মনে করছেন বিশেজ্ঞরা।

স্থানীয় প্রশাসন জানা যায়, এই সংকটময় পরিস্থিতিতে কিছু মানুষ সরকারের নির্দেশনা মানছেন না। সামাজিক দ্রুত নিশ্চিত করতে এবং কারণ ছাড়া যারা বের হচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন